• শনিবার ( রাত ১:৪১ )
  • ১৬ই ডিসেম্বর ২০১৭ ইং
  • ২৬শে রবিউল-আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী
  • ২রা পৌষ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ ( শীতকাল )
MY SOFT IT

প্রসবজনিত ফিস্টুলা নির্মূল করতে হবে

মাতৃত্ব হচ্ছে একজন নারীর পূর্ণতা ও তাঁর জীবনের সবচেয়ে মধুর অভিজ্ঞতা। একজন নারীর গর্ভাবস্থার সময়টা আশা ও আনন্দে পরিপূর্ণ থাকে। তবে হাজারো নারী এবং শিশু নিরাপদ মাতৃত্বের প্রতিশ্রুতি ও সুবিধা থেকে বঞ্চিত। সারা বিশ্বে প্রতিদিন প্রায় ৮০০ নারী অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় অথবা সন্তান প্রসবের সময় মারা যান। শুধু বাংলাদেশে এ রকম মাতৃমৃত্যু হয় প্রতিদিন গড়ে ১৫টি। আর যাঁরা মারা যাচ্ছেন, তাঁদের মধ্যে অন্তত ২০ জন বা এরও বেশি মারাত্মক জটিলতায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন।
এ কথা সত্যি যে অধিকাংশ মাতৃমৃত্যু এবং মাতৃত্বজনিত অসুস্থতা প্রতিরোধ করা যেতে পারে, যদি প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা ও চিকিৎসা সময়মতো নেওয়া যায়। এ ক্ষেত্রে মূল বাধা হচ্ছে, সন্তান প্রসবের আগে, প্রসবকালে ও পরে মায়েদের মানসম্মত পরিচর্যার সুযোগ না থাকা এবং এ বিষয়ে তথ্য ও জ্ঞানের অভাব। প্রসবকালীন জটিলতায় সবচেয়ে গুরুতর ও বেদনাদায়ক যেসব ক্ষতি নারীর হয়ে থাকে, সেগুলোর একটি হলো প্রসবজনিত (অবস্টেট্রিক) ফিস্টুলা। বাংলাদেশে আনুমানিক ৭২ হাজার নারী প্রসবজনিত ফিস্টুলায় ভুগছেন।
অবস্টেট্রিক ফিস্টুলা কী?
যোনিপথ, মূত্রাশয় ও মলদ্বারের মাঝখানে কোনো অস্বাভাবিক পথ তৈরি হলে একে প্রসবজনিত ফিস্টুলা বলে। এর ফলে কোনোরকম নিয়ন্ত্রণ ছাড়াই প্রস্রাব-পায়খানা বের হয়ে যায়। চিকিৎসাবিহীন প্রলম্বিত ও বাধাপ্রাপ্ত প্রসবের কারণে এই ফিস্টুলা হয়। পরিণামে বিষণ্নতা, সামাজিক বিচ্ছিন্নতা, দারিদ্র্য প্রভৃতি সমস্যায় নারীরা পড়েন। তবে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো, অবস্টেট্রিক ফিস্টুলা প্রতিরোধযোগ্য। প্রসবজনিত ফিস্টুলা টিকে থাকা মানে নারীর প্রজনন স্বাস্থ্যসেবা এখনো নিশ্চিত করা যায়নি এবং নারীদের স্বাস্থ্য ও অধিকার রক্ষা করা যাচ্ছে না।

কীভাবে এটা হয়?
বাধাগ্রস্ত প্রসববেদনার ক্ষেত্রে সঠিক সময়ে জরুরি ও উন্নত চিকিৎসা না পেলে প্রসবকালীন বাধা থেকে নারীর নিম্নাঙ্গের টিস্যুগুলোতে রক্ত সঞ্চালন বন্ধ হয়ে যায়। ফলে টিস্যুগুলো মারা যায় এবং একটি ছিদ্র তৈরি হয়। এমন অবস্থায় অধিকাংশ নারী মৃত সন্তান প্রসব করেন।
শিল্পোন্নত দেশগুলোতে দক্ষ ব্যবস্থাপনার ফলে অবস্টেট্রিক ফিস্টুলা প্রায় নির্মূল হয়েছে। কিন্তু এখনো যেসব নারী এ জটিলতায় আক্রান্ত হচ্ছেন, তাঁরা সাধারণত দরিদ্র এবং চিকিৎসাসেবার আওতার অনেক বাইরে রয়েছেন। সন্তান প্রসবের সময় তাঁদের পাশে দক্ষ সেবাদানকারী ব্যক্তিরা থাকেন না। বাংলাদেশে ৬০ শতাংশেরও বেশি প্রসব বাড়িতে হয়ে থাকে।
নারীদের অবস্টেট্রিক ফিস্টুলা হওয়ার ক্ষেত্রে অন্যতম অবদান রাখছে বাল্যবিবাহ। অল্প বয়সে যেসব মেয়ের বিয়ে ও গর্ভধারণ হয়, তাঁদের শরীর সন্তান প্রসবের মতো চাপ সামলানোর উপযোগী থাকে না। ফলে ফিস্টুলার মতো অবর্ণনীয় যন্ত্রণার শিকার হন।

পরিণামগুলো কী?
অবস্টেট্রিক ফিস্টুলার চিকিৎসা না নিলে তা থেকে নানা ধরনের শারীরিক অসুস্থতা হতে পারে। যেমন: বিভিন্ন রোগের সংক্রমণ, কিডনির সমস্যা, যন্ত্রণাদায়ক ক্ষত, শারীরিক মিলন ও সন্তান ধারণে অক্ষমতা। সেই সঙ্গে সামাজিক লজ্জা প্রায় সময়ই নারীদের বিচ্ছিন্নতার দিকে ঠেলে দেয়। ফলে তাঁরা পরিত্যক্ত হয়ে পড়েন। অনেক ক্ষেত্রে এ সমস্যায় আক্রান্ত নারীদের তালাক দিয়ে দেন তাঁদের স্বামীরা। পরিবার ও সমাজও তাঁদের আলাদা করে দেয়। এতে ওই নারীরা আরও বেশি করে দারিদ্র্যের কবলে পড়েন।
অবস্টেট্রিক ফিস্টুলাকে তাই প্রায়ই একটি লুকোনো যন্ত্রণা হিসেবে বিবেচনা করা হয়, যা নারী ও তাঁদের পরিবারের ওপর প্রভাব ফেলে। ফিস্টুলায় আক্রান্ত নারীরা এ সমস্যাটি নিয়ে লজ্জিত থাকেন এবং এ নিয়ে খুব একটা কথা বলেন না। তাঁদের ভোগান্তিটা আড়ালেই রয়ে যায়।

কী করা যেতে পারে?
অবস্টেট্রিক ফিস্টুলার চিকিৎসা সম্ভব। বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই অস্ত্রোপচার করে ফিস্টুলা সম্পূর্ণরূপে নিরাময় করা সম্ভব। বাংলাদেশে এ জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জাতীয় ফিস্টুলা কেন্দ্রকে সেন্টার অব এক্সিলেন্স হিসেবে মনোনীত করা হয়েছে। ইউএনএফপিএর সহায়তায় বর্তমানে ১০টি মেডিকেল কলেজে ফিস্টুলা রোগীদের সেবা দেওয়া হয়। এ ছাড়া আরও সাতটি বেসরকারি সেবা প্রতিষ্ঠান ফিস্টুলা নিরাময়ে বিশেষ সেবা দিয়ে থাকে।
ফিস্টুলা সারাতে অস্ত্রোপচারের পাশাপাশি পুনর্বাসন কর্মসূচির আওতায় রোগীদের পরামর্শ ও অন্যান্য সহযোগিতা দেওয়া হয়। এসবের মধ্যে রয়েছে জীবিকা অর্জনের জন্য প্রয়োজনীয় দক্ষতা অর্জন। এতে ওই নারীরা সমাজের সঙ্গে আবার নিজেদের যুক্ত করে, নতুন করে জীবন শুরু করার মর্যাদা ও আশা ফিরে পান।

.ফিস্টুলা দূর করতে প্রতিরোধই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ
প্রসবকালে সব নারীর পাশে দক্ষ সেবাদানকারীর উপস্থিতি নিশ্চিত করা এবং প্রসবজনিত জটিলতায় জরুরি সেবা দেওয়ার মাধ্যমে ফিস্টুলাকে প্রায় নির্মূল করা যেতে পারে। ইউনিয়ন ও উপজেলা পর্যায়ের স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ইতিমধ্যে ৬০০ জন মিডওয়াইফ নিয়োগ করা হয়েছে। আরও অনেকে নিয়োগ ও পোস্টিংয়ের অপেক্ষায় আছেন। বাংলাদেশের সব নারীর প্রয়োজন মেটাতে মোট ২২ হাজার পেশাদার মিডওয়াইফের চাহিদা রয়েছে। তাঁরা ওই নারীদের প্রসবের আগে, প্রসবকালে ও পরে প্রয়োজনীয় সব সেবা নিশ্চিত করতে পারবেন।
বাল্যবিবাহের অবসান ঘটিয়ে এবং মেয়েদের প্রথম গর্ভধারণের সময়টা পিছিয়ে দেওয়ার মাধ্যমে ফিস্টুলার হার কমানো সম্ভব।
গর্ভধারণের সময়সীমা: নারীদের পরিবার পরিকল্পনার সেবার আওতায় আসার সুযোগ দিলে ফিস্টুলার ঝুঁকি অনেকটাই কমে যায়। এ ছাড়া তাঁদের যৌন ও প্রজননস্বাস্থ্যের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষমতা দিলেও পরিস্থিতির উন্নতি ঘটে।
অবকাঠামোর উন্নয়ন: স্বাস্থ্যকেন্দ্রগুলোতে দ্রুতগামী পরিবহনব্যবস্থা নিশ্চিত করা প্রয়োজন। চিকিৎসাকেন্দ্রগুলোতে অস্ত্রোপচারের জন্য প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি ও কর্মীদের উপস্থিতি জরুরি।
দারিদ্র্যের বিরুদ্ধে লড়াই: ফিস্টুলা রোগটি দরিদ্রদের অসুখ নামে পরিচিত। আর্থসামাজিক অবস্থা যা-ই হোক না কেন, সবচেয়ে প্রান্তিক ও ঝুঁকিপূর্ণ নারীসহ সবাইকে যৌন ও প্রজনন স্বাস্থ্যসেবা এবং প্রয়োজনীয় তথ্য পৌঁছে দিতে হবে।
দেশব্যাপী সব সম্প্রদায়ের নারীর শিক্ষা ও ক্ষমতায়ন: যখন নারীরা নিজেদের শরীর ও প্রজননের অধিকার সম্পর্কে শিক্ষা অর্জন করেন এবং প্রয়োজনীয় সেবা পান, তখন প্রসবজনিত জটিলতা, অসুখ-বিসুখ ও মৃত্যুহার কমে যায়। সমাজের সব সম্প্রদায়ের মানুষকে ফিস্টুলা প্রতিরোধের উপায় এবং বর্তমানে প্রচলিত চিকিৎসা সম্পর্কে সচেতন করে তুলতে হবে। অনেক নারী সঠিক চিকিৎসা নিয়ে ফিস্টুলা থেকে পরিত্রাণ পেয়েছেন। তাদের মধ্যে অনেকেই কমিউনিটি ফিস্টুলা অ্যাডভোকেট হয়ে রোগটির ঝুঁকি ও চিকিৎসা সম্পর্কে প্রচার চালাতে এবং সচেতনতা বাড়াতে পারেন।
ইউএনএফপিএর লক্ষ্য হলো, আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে বাংলাদেশ থেকে অবস্টেট্রিক ফিস্টুলা নির্মূলে সরকারকে সহায়তা করা এবং নিরাপদ মাতৃত্বের পক্ষে প্রচার চালানো। এ জন্য আর্থিক সংস্থান ও নীতিনির্ধারণী পর্যায়ে সহযোগিতা প্রয়োজন। স্বাস্থ্যসেবা দাতা এবং বিভিন্ন সম্প্রদায়ের মানুষকে এ কাজে সাহায্য করতে হবে। অবস্টেট্রিক ফিস্টুলা নির্মূল করার জন্য শিক্ষা , নারীর ক্ষমতায়ন, যৌন ও প্রজনন স্বাস্থ্যসেবা এবং অধিকার নিশ্চিত করার পথেই অগ্রসর হতে হবে।
ইউএনএফপিএর একটি প্রতিবেদন থেকে অনূদিত

Web design company Bangladesh

পুরাতন খবর

December 2017
SMTWTFS
« Nov  
 12
3456789
10111213141516
17181920212223
24252627282930
31 

Related News

ইউটিউব, ফেসবুক কি শক্তের ভক্ত?

সরাসরি সম্প্রচারের যুগে বিতর্কিত ভিডিওর বিরুদ্ধে ফেসবুক-ইউটিউব এত দিন মুখ বুজে ছিল। জঙ্গি, উগ্রবাদ, সহিংসতার ...

বিস্তারিত

ধুয়ে-মুছে সব করে নিন সাফ

মনিটরঈদের ছুটির চেকলিস্টে মুভি দেখাটা থাকেই। টিভির তুলনায় এখন কম্পিউটার মনিটরে সিনেমা দেখা হয় ...

বিস্তারিত

রাজধানীতে বাড়ছে অপহরণ আতঙ্ক

গত বৃহস্পতিবার রাজধানীর কাকরাইল এলাকা থেকে অফিসের কাজ শেষে রাত ১১ টার দিকে বাসায় ফিরছিলেন জনাব মানসুর আলী নামের ...

বিস্তারিত

‘জঙ্গি আস্তানায়’ পড়ে আছে ৫ লাশ

রাজশাহীর গোদাগাড়ীর হাবাসপুরের ‘জঙ্গি আস্তানায়’ পাঁচজনের লাশ পড়ে আছে। ঘটনাস্থল ঘুরে এসে আজ বৃহস্পতিবার ...

বিস্তারিত